মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

ভাষা ও সংস্কৃতি

ভাষা ও সংস্কৃতি

 

ভাষাঃ বাংলা ভাষার পামাপাশি আদিবাসী সম্প্রদায়ে নিজস্ব ভাসা, পোষাক রয়েছে।

যেমনঃ ক) চাকমা

খ) মারমা

গ) ত্রিপুরা

(ক) চাকমাঃ-

চাকমা ভাষার নিজস্ব বর্ণমালা, সংস্কৃতি ঐতিহ্য রয়েছে।

খেলাধুলাঃ ফুটবল, ক্রিকেট, কাবাদি, দাবা, নাদেং খেলা, ঘিলা খেলা, বলি খেলা।

 

সংস্কৃতিঃ বিযু অনুষ্ঠান, বুদ্ধ পুর্ণিমা, প্রবারণা পূর্ণিমা, কঠিন চীবর দান ইত্যাদি রয়েছে।

            সাধারণত নিজস্ব ভাষার মাধ্যমে নৃত্য, যাত্রা, ধর্মীয় নাটক ইত্যাদি উদ্যাপন করা হয়। ইহা ছাড়াও জনপ্রিয় ‘‘ জুম নৃত্য’’ পালন করা হয়ে থাকে।

 

(খ) মারমাঃ-

মারমা  ভাষার নিজস্ব বর্ণমালা, সংস্কৃতি ঐতিহ্য রয়েছে।

সংস্কৃতিঃ সাংগ্রই উৎসর প্রতি বছর চৈত্র সংক্রান্তিতে পালন করা হয় এবং বুদ্ধ পুর্ণিমা, প্রবারণা পূর্ণিমা, কঠিন চীবর দান ইত্যাদি রয়েছে।

খেলাধুলাঃ ফুটবল, ক্রিকেট, কাবাদি, দাবা ও পানি খেলা ইত্যাদি।

 

(গ) ত্রিপুরাঃ

 ত্রিপুরা নিজস্ব ভাষার, সংস্কৃতি ঐতিয্য রয়েছে।

সংস্কৃতিঃ বৈসুক উৎসব প্রতি বছর চৈত্র সংক্রান্তিতে পালন করা হয়।

খেলাধুরা ও বিনোদনঃ

খেলাধুলাঃ ফুটবল, ক্রিকেট, কাবাদি, দাবা, বলিখেলা এবং ঘিলা খেলা, লুডু খেলা, কুতুবতি, কানামাছি, ডাংগলি খেলা ইত্যাদি।

বিনোদনঃ- ত্রিপুরা সাদারণত বিনোদনমূলক হিসাবে ধর্মীয় নাটক, যাত্রা এবং বিখ্যাত বোতল  নৃত্য উদ্যাপন করে।

 

মুসলিমঃ-

            ইহা ছাড়াও বাংলা ভাষা ভাষি মুসলিম, হিন্দু, বড়ূয়া বসবাস করে। তাদের ভাষা পৃথিবীর প্রচলিত অন্যতম ভাসার মধ্যে নির্ধারিত বর্ণমালা আছে।

সাংস্কৃতিঃ- মসুলমানরা খুবই ধর্মপ্রাণ। ঈদুল-ফিতর, ঈদুল-আযহা, শবে মেরাজ, শবে-বরাত এবং শবে কদর ধর্মীয় ভাব গার্ম্ভীর্যের মাধ্যমে উৎসব মুখর পরিবেশে উদ্যাপন করে।

 

হিন্দুঃ-

সাংস্কৃতিঃ- দূর্গাপূজা, কালীপূজা, জন্মাষ্টমী, রথযাত্রা, লক্ষীপূজা, শিবপূজা, সরস্বতীপূজা ইত্যাদি ধর্মীয় ভাব গাম্ভির্যের মাধ্যমে উদ্যাপন করে।

খেলাধুলাঃ- বাঙালিরা জাতীয় খেলাধুলার মত করিয়া থাকে।